শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ০৯:২০ অপরাহ্ন

নোটিশ :
“নিউজ মদিনা কন্ঠ” ওয়েব সাইটটি ভিজিট করার জন্য আপনাকে আন্তরিক শুভেচ্ছা।
ব্রেকিং নিউজ :
রাজাপুরে জোয়ারের পানিতে তরমুজ ক্ষেত তলিয়ে মাঠেই নষ্ট হচ্ছে ফল, দিশেহারা চাষীরা। রাজাপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৩। রাজাপুরে সাবেক বিজিবি কর্মকর্তার বসতঘরে হামলার অভিযোগে মামলা, আহত ২। কাঠালিয়ায় অনাবৃষ্টিতে রবিশস্যের ফলন কমার আশঙ্কা,ক্ষতিগ্রস্থ ক্ষুদ্র চাষীরা। নলছিটিতে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ১৯জনের জরিমানা। ঈশ্বরগঞ্জে ভ্রাম্যমান মাছ বিক্রয় কেন্দ্রের উদ্বোধন। রমজানের পবিত্রতা রক্ষার্থে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক বরাবর ইশার স্মারকলিপি। রাজাপুরে নানা বাড়ির পুকুরের পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু। এবাদত‌ই হোক রমজানের ব্যস্ততা-সফিকুল ইসলাম সালেহী। চান্দিনার কামারখোলা কমিউনিটি কমপ্লেক্স মসজিদের উদ্যোগে রমজানের ইফতার সামগ্রী বিতরন।

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে বোরো ক্ষেত পরিচর্যায় ব্যস্ত কৃষক।

বোরো ক্ষেত পরিচর্যায় ব্যস্ত কৃষক

হোছাইন মুহাম্মদ তারেক , ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে লক্ষ্যমাত্রার অধিক জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। ক্ষেত পরিচর্যায় মাঠে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন কৃষক। প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে চলতি মৌসুমে বোরোর বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। বর্তমানে ধান গাছের পরিচর্যায় যেন দম ফেলার সময় নেই কৃষকের।

কৃষি নির্ভর এ অঞ্চলের প্রায় ৮০ ভাগ মানুষের ফসল উৎপাদন ও পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় কাটে। রোপা-আমন কর্তন শেষে বোরো চাষে কোমর বেঁধে মাঠে নামেন কৃষক ও শ্রমিকরা। বাড়ির আশপাশে বিস্তীর্ণ বোরো ফসলের মাঠ, সবুজে সমারোহ। কেউ ধান গাছের আগাছা পরিষ্কার করছেন। আবার কেউ সার ও কীটনাশক প্রয়োগ করছেন। সবুজ পাতায় বাতাসে দুলছে কৃষকের স্বপ্ন।

উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, চলতি বোরো মৌসুমে উপজেলার ১১ টি ইউনিয়নে ২০ হাজার ২শ ৪০ হেক্টর জমিতে বোরো ধান আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। আবাদ হয়েছে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ২০ হাজার ২শ ৮০ অধিক জমিতে। এর মধ্যে বেশী রোপণ করা হয়েছে হাইব্রিড, ব্রি ধান ৮৮, ব্রি ধান ৮৯ ।

উপজেলার মাইজবাগ ইউনিয়নের হারুয়া গ্রামের কৃষক মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ক্ষেতে ফসলের অবস্থা এ বছর খুবই ভালো। ঝড়-বৃষ্টি আর শিলায় যদি নষ্ট না করে, তাহলে এবার ফলন খুবই ভালো হবে। এবার শীত কম থাকায় বীজতলায় ধানের চারাও খুবই ভালো ছিল। জমিতে লাগানোর পর খুব দ্রুতই কুশি গজিয়েছে।

উক্ত ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সোহেল রানা বলেন, আগাছা ধান গাছের পুষ্টি গ্রহণ করে গাছকে দুর্বল করে ফেলে এবং রোগ ও পোকার আশ্রয়স্থল হিসেবে কাজ করে। এতে ফসলের উৎপাদন হ্রাস পায়। আগাছা জন্ম নেওয়ার সাথে সাথে হাত দিয়ে টেনে অথবা নিড়ানি দিয়ে পরিষ্কার করে দিতে হবে ।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাধন কুমার গুহ মজুমদার জানান, উপজেলায় এবার কৃষকরা নির্বিঘ্নে বোরো আবাদ করতে পেরেছেন। চাষিরা এখন অনেক সচেতন। তারা আবাদের ক্ষেত্রে এখন সর্বোত্তম প্রযুক্তি ব্যবহার করতে তৎপর। প্রাকৃতিক কোনো দুর্যোগ না হলে এবার লক্ষ্যমাত্রার অধিক ধান উৎপাদন হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। প্রকাশিত লেখাটির আইনগত, মতামত বা বিশ্লেষণের দায়ভার সম্পূর্ণরূপে লেখকের । মদিনা কন্ঠ-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এসব মন্তব্যের কোনো মিল নাও থাকতে পারে। লেখকের নিজস্ব মতামতের কোনো প্রকার দায়ভার “মদিনা কন্ঠ‘র কর্তৃপক্ষ ” নেবে না।


close(x)

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮ - ২০২১. নিউজ মদিনা কন্ঠ
Design & Developed BY Rahmatullah Palush
You cannot copy content of this page