মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৫ অপরাহ্ন

নোটিশ :
দেশ-বিদেশের সকল আপডেট খবর পেতে ভিজিট করুন অনলাইন ভার্সন ‘ মদিনা কন্ঠ’ ধন্যবাদ।
ব্রেকিং নিউজ :
রংপুরের সেই হিন্দু পাড়া পল্লিতে ভয়াবহ অগ্নিকাণের ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে সহায়তা প্রদান ইসলামী আন্দোলন সিলেটের বিশ্বনাথে শেখ রাসেল দিবস ২০২১ পালন ঝালকাঠিতে বৃদ্ধ জবেদা খাতুনের চিকিৎসায় এইট হিউম্যান ওয়েল ফেয়ার ফাউন্ডেশনের অর্থ প্রদান রাজাপুরে সাড়ে ৩ বছরের শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে কিশোর গ্রেপ্তার ঝালকাঠিতে চিহ্নিত মাদক কারবারি গ্রেপ্তার ঝালকাঠিতে জেলা কর্ণধার কমিটির সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরগঞ্জে ইউএনও’র সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় হিজলায় দেশীয় অস্ত্রসহ ১০ ডাকাত সদস্যকে আটক করেছে কোস্টগার্ড । বিশ্বনাথে ভারতীয় মদের চালানসহ ৪ মাদক ব্যবসায়ী আটক এক ঘণ্টার ডিসি কিশোরী জান্নাতুল নারী ও শিশু বান্ধব জেলা গড়তে চান

বরিশালে হারিয়ে যাচ্ছে কলমি লতা ও মাইক ফুল

মাইক ফুল

গাছগুলো দেখতে অনেকটা লতার মতো। আর ফুলগুলো একেবারেই মাইকের মতো। আজ থেকে এক যুগ আগে গ্রামের দস্যি ছেলেমেয়েরা এই ফুল নিয়ে খেলতো, বিশেষ করে মেয়েরা কানে গুঁজে সেজে ঘুরে বেড়াতো। হারিয়ে যাচ্ছে গ্রামবাংলার অতিপরিচিত কলমি লতা ও তার ফুল। সেদিন দুপুরে চোখে পড়ল বরিশালের নলছিটির রানাপাশা সড়কের পাশে সেই চিরচেনারূপে বেড়ে ওঠা কলমি লতা।

গ্রামগঞ্জ আর শহরের আনাচে-কানাচে জন্মাতো এই লতা ও ফুল। মানুষের চারপাশে জড়িয়ে থাকতো। ফসল রক্ষার বেড়া, বাড়ির উঠান ঘেরা সহ বিভিন্ন কাজে আগের দিনের মানুষ ব্যবহার করতো কলমি লতা। জ্বালানি কাজেও প্রয়োজন ছিল অপরিসীম। এগাছ ছিল অমর, ডাল থেকে কুশি বের হতো। জন্ম নিতো একটি লতা থেকে একাধিক লতা।

কলমি লতার মাইক ফুল ছিল এক সময়ের সৌন্দর্যের প্রতীক। ছিল তার ব্যক্তিগত সুভাষ, যে সুভাষ ছড়িয়ে পড়তো চারপাশে। শিশু-কিশোররা খেলতো এই মাইক ফুল দিয়ে, আবার প্রিয় মানুষের চুলের খোঁপায় পরিয়ে দিতো কলমি লতার মাইক ফুল।

আধুনিক যুগে বিভিন্ন প্রজাতির সুগন্ধি ফুলের আবির্ভাবে মূল্যহীন হয়ে গেছে সেই মাইক ফুল। ভোর থেকে ফুটতে শুরু করে, আর তা ধরে রাখে দুপুর পর্যন্ত। নিজে ফোটে ও সৌরভ ছড়িয়ে দেয় সৌন্দর্য পিপাসুদের মাঝে।

কথা হয় বরিশালের ৮০ বছর বয়সী এক বৃদ্ধ ব্যাক্তির সঙ্গে। তিনি বলেন, এখন তো আর আগের মতো চোখেই পড়ে না কলমি লতা। আমাদের সময় প্রায় সব কাজেই এই লতার প্রয়োজন হতো। এখন তো ইট, পাথর, সিমেন্ট, বালু আর রডের ব্যবহার হচ্ছে। তখন আমরা কলমি লতা দিয়ে সব কাজ করতাম।’

বরিশালের নলছিটি উপজেলার মাহাবুব আলম বলেন, ‘ছোটবেলায় আমরা এই লতা দিয়ে ডাংগুলি খেলতাম। আবার তার মাইক ফুল দিয়ে ছেলেমেয়েরা মিলে এক সঙ্গে খেলাধুলা করত।’

নলছিটির রানাপাশা ইউনিয়নের রাস্তার পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়া বৃদ্ধা মরিয়ম বেগমের নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমার তো জ্বাল দেওয়াসহ ব্যাবাক কাজই কলমি লতা দিয়েই করতাম। ছোল-মেয়েকে এই কলমি লতা ভাঙে মেরে শাসন করতাম।’ অপর গ্রামের এক কৃষক সামচুল আলম বলেন, ‘এগুলো তো এখন দেখাই যায় না। মোরা গরিব মানুষ, ইটা দিয়ে তো আর বাড়ির উঠান ঘেড়ার পারতাম না। তাই কলমি লতা দিয়ে কাজ করতাম। এগুলোর কদর তো আর কেউ করে না।’

নিউজ টি আপনার বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করুন:-

  • মন্তব্য প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। প্রকাশিত লেখাটির আইনগত, মতামত বা বিশ্লেষণের দায়ভার সম্পূর্ণরূপে লেখকের । মদিনা কন্ঠ-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এসব মন্তব্যের কোনো মিল নাও থাকতে পারে। লেখকের নিজস্ব মতামতের কোনো প্রকার দায়ভার “মদিনা কন্ঠ‘র কর্তৃপক্ষ ” নেবে না। আপনার কোন মতামত থাকলে ইমেইলে যোগাযোগ করুন madinakanthonews@gmail.com ধন্যবাদ।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই রকম আরো সংবাদ







© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮ - ২০২১.  মদিনা কন্ঠ
Design & Developed BY Rahmatullah Palush
error: Content is protected !!