মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ১১:০১ অপরাহ্ন

নোটিশ :
“দৈনিক মদিনা কন্ঠ” ওয়েব সাইটটি ভিজিট করার জন্য আপনাকে আন্তরিক শুভেচ্ছা।
ব্রেকিং নিউজ :
প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহারের তালিকায় এক পরিবারের সবার নাম । রাতের আধারে ত্রাণ নিয়ে আমেনা বেগমের পাশে দাঁড়িয়েছেন রাজাপুর ইউএনও। আল-আকসা মসজিদ প্রাঙ্গণে আবারও সংঘর্ষে শতাধিক আহত। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও মানব সেবায় এগিয়ে আসলেন-মানবিক নেতা এম হেলাল উদ্দিন। আগৈলঝাড়ায় বসত ঘর পুড়ে ছাই কিন্তু পোড়েনি কোরআন শরিফ। নলছিটিতে ড্রেজার মালিককে ৮০ হাজার টাকা জরিমানা। বাকেরগঞ্জে বজ্রপাতে একজনের মৃত্যু। বরিশাল বিভাগীয় অনলাইন সম্পাদক-প্রকাশক পরিষদের এতিম ছাত্রদের নিয়ে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত ওসমানীনগরে সময় মতো ইফতারী না দেওয়াতে নববধূ হত্যা, স্বামী-শাশুড়ি গ্রেফতার। বরিশালের চন্দ্রমোহন এলাকায় কবরস্থানের জমি দখল করে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ।

ফেয়ার হেলথ হাসপাতালে অপারেশনের সময় নব জাতকের মাথা কেটে ফেলেন ডাক্তার।

ফেয়ার হেলথ হাসপাতাল

ফারুক আহমদ,সিলেট:: সিলেট নগরীতে মীরের ময়দানে ফেয়ার হেলথ প্রাইভেট হাসপাতালে সিজার করার সময় নবজাতকের মাথা কেটে ফেললেন গাইনী বিভাগেরসার্জারী ডাক্তার মো: আব্দুস সবুর।আজ বুধবার ০৯ ডিসেম্বর সিলেট নগরীর মীরের ময়দান অর্ণব ৭৪/ অবস্হিত ফেয়ার হেলথ হাসপাতালে এই ঘটনা ঘটেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। বর্তমানে ওই নবজাতকটি আশংকাজনক অবস্হায় হাসপাতালের বিছানায় যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছে।

এই ঘটনায় ডাক্তার শুধু শিশুর মাথা কেটেই যে অপেশাদারিত্বের পরিচয় দেন তা নয় বরং বিষয়টি শিশুর অভিভাবকদের কাছ থেকে লুকানোরচেষ্টা ও তিনি করেছেন ডাক্তার ও ফেয়ার হেলথ হাসপাতালের কর্তব্যরত নার্সরা।

জানা গেছে, নগরীর মীরা বাজারের বাসিন্দা প্রবাসী ফারুক আহমদের স্ত্রী মোছা: শুকরিয়া বেগমের প্রসব ব্যথা উঠলে ডাক্তারের পরামর্শে নগরীরফেয়ার হেলথ হাসপাতালে ভর্তি হন। বুধবার দুপুরে শুকরিয়ার অপারেশন করেন গাইনি বিভাগের সার্জন ডাক্তার আব্দুস সবুর। অপারেশনেরসময় তিনি নবজাতকের মাথার পেছনদিকে ছুরি দিয়ে বেশ গভীরভাবে কেটে ফেলেন ফলে শিশুটির খুব বেশী রক্তপাত হয়। জন্মের শিশুটিকে অবিরত কান্না করতে দেখে মা দুধ পান করাতে চাইলে শিশুকে দূরে সরিয়ে রাখেন ডাক্তার ও কর্তব্যরত নার্সরা।তখন একরকম জোর করে শিশুকেমার কাছে নিয়ে আসলে মাথার পেছন দিক রক্তাক্ত দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন শুকরিয়া বেগম।

প্রবাসী ফারুক আহমদের মামাতো ভাই মো: ইজ্জাদুর রহমান মুন্না জানান, আমাদের কাছ থেকে প্রথমে বিষয়টি লুকানোর চেষ্টা করেন ডাক্তার ওনার্সরা। পরে আমরা দেখে ফেললে আমাদেরকে তারা সান্তনা দেয়ার চেষ্টা করেন।

তিনি বলেন আরো বলেন, শিশুর মাথার পেছন দিকে বেশ গভীরভাবে অনেকটাই কেটে গেছে। আরেকটু কেটে গেলে হয়তো ওর প্রাণটাই হুমকিরসম্মুখীন হয়ে পড়ে যেতো। মানুষ বাধ্য হয়ে ডাক্তারদের শরাণাপন্ন হন,কিন্তু দু:খের বিষয় অনেক চিকিৎসক শুধু টাকা পয়সাকে ই প্রাধান্য দিয়ে নব জাতক শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধ এমনকি সব বয়সি মানুষের জীবননিয়েই তারা ছিনিমিনি খেলেন।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান ইজ্জাদুর রহমান মুন্না। এ বিষয়ে ফেয়ার হেল্থ হাসপাতালের কর্মকর্তা রিসিপশনিস্ট দোলন চৌধুরী জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বলেন, এটি একটি অনাকাঙ্খিত দুর্ঘটনা। ঘটনার পরপরই হাসপাতালের ব্যবস্থাপকসহ ঊর্ধ্বতম কর্মকর্তারা শিশুকে দেখে গেছেন এবং প্রয়োজনীয় চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন।

শিশুর অভিভাবককে বষয়টি লুকানোর অভিযোগের বিষয়ে আব্দুস সবুর বলেন, এই অভিযোগ সত্য নয়। সামান্যই কেটেছে এবং শিশুটির অবস্থাভালো। তারপরেও আমরা আলাদা শিশু বিশেষজ্ঞ ডাক্তার দিয়ে ট্রিটমেন্ট করাচ্ছি।

নিউজটি শেয়ার করুন

মন্তব্য প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। প্রকাশিত লেখাটির আইনগত, মতামত বা বিশ্লেষণের দায়ভার সম্পূর্ণরূপে লেখকের । মদিনা কন্ঠ-এর সম্পাদকীয় নীতির সঙ্গে এসব মন্তব্যের কোনো মিল নাও থাকতে পারে। লেখকের নিজস্ব মতামতের কোনো প্রকার দায়ভার “মদিনা কন্ঠ‘র কর্তৃপক্ষ ” নেবে না।


© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮ - ২০২১. দৈনিক মদিনা কন্ঠ
Design & Developed BY Rahmatullah Palush
You cannot copy content of this page